রাজ্য

বাজার অগ্নিমূল্য, লক্ষ্মীর আরাধনায় পকেটে টান মধ্যবিত্ত বাঙালীর

হাওড়া, দুর্গাপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়াঃ দুর্গাপুজোর রেশ কাটতে না কাটতেই এসে গেল লক্ষ্মীপুজো। রবিবার কোজাগরী লক্ষ্মীপুজো। ধনদেবীর আরাধনায় মাততে চলেছে গোটা বাংলা। মা লক্ষ্মীকে ঘরে আনতে ইতিমধ্যেই পুজোর আয়োজন শুরু হয়ে গেছে। রাজ্যের বিভিন্ন বাজারগুলিতে ফল, সবজি, মূর্তির দোকানে শুরু হয়ে গিয়েছে বেচা কেনা। প্রতিবারের মতো এবারও পাল্লা দিয়ে বেড়েছে ফল, সবজি, পুজোর সরঞ্জামের দাম ৷ তবে তার মধ্যেই পুজোর কেনাকাটায় মেতেছে আম বাঙালী। হাওড়ার কালিবাবুর বাজারে গিয়ে দেখা গেল মুর্তির দোকান কেনাকাটার ভিড়। খুঁটিয়ে-খুঁটিয়ে প্রতিমার মুখশ্রী দেখে ঠাকুর কিনছেন ক্রেতারা। প্রতিমার পাশাপাশি চলছে লক্ষ্মীর পট, সরা কেনাও। বড় প্রতিমার দাম ১২০০ টাকা থেকে ১৫০০ টাকা পর্যন্ত । ছোট মূর্তির দাম ৭০০-৯০০ টাকার মধ্যে। লক্ষ্মীর সরার দাম ১০০-১৫০ টাকা। বাজারের ক্রেতারা জানালেন দাম বেড়েছে ফল মূলেরও। কিন্তু মায়ের আরাধনা তো করতেই হবে। তাই জিনিসের পরিমান কমিয়ে ম্যানেজ করা হচ্ছে বাজেট।

অন্যদিকে দুর্গাপুরের স্টেশন বাজারেও দেখা গেল প্রতিমা কেনার ভিড়। এখানেও ক্রেতাদের অভিযোগ প্রতিমার দাম লাগামছাড়া। বিক্রেতারাও স্বীকার করলেন দাম বৃদ্ধির কথা। তবে তাদের দাবি প্রতিমা তৈরির সামগ্রীর দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রতিমার দাম বাড়াতে বাধ্য হয়েছেন তারা।

এদিকে বাঁকুড়া জেলা জুড়ে গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে সবজি চাষের। যার জেরে বেড়েছে সবজির দাম। তার উপর লক্ষ্মীপুজোর জন্য ধরাছোঁয়ার বাইরে পৌঁছেচে সবজির দাম। বাঁকুড়ার পাশাপাশি পুরুলিয়ার চক বাজারেও লক্ষ্মীপুজোর কেনা কাটা করতে গিয়ে মধ্যবিত্ত বাঙালীর মাথায় হাত। একে অগ্নি মূল্য বাজার অন্যদিকে জেলাজুড়ে চলছে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি। আর এর দুইয়ের যাঁতা কলে সমস্যায় পড়েছেন ক্রেতা থেকে বিক্রেতা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *