শহর

গুরুতর অসুস্থ ন’বছরের নাবালক, ভাড়ায় না পোষানোয় পরিষেবা দিল না অ্যাম্বুল্যান্স চালক

কলকাতাঃ মাথায় চোট পেয়ে গুরুতর অসুস্থ ন’বছরের নাবালক। রেকজোয়ানী প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসার পরও বমি করেই চলেছে সে। শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হওয়ায় আরজি কর হাসপাতালে তাকে স্থানান্তর করেন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিৎসক। কিন্তু অত রাতে ছেলেকে কিভাবে হাসপাতালে নিয়ে যাবেন ভেবে পাচ্ছেন না পরিচারিকার কাজ করা মহিলা ও পরিবার। স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সামনেই দাঁড়িয়ে রয়েছে দুটি অ্যাম্বুল্যান্স। কিন্তু খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না চালকদের। খুঁজে পেতে পাওয়া গেল এক চালককে। তিনি তখন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মধ্যেই মশারি টাঙিয়ে ঘুমাচ্ছেন। তাকে ডেকে তুলে হাসপাতালে যাওয়ার কথা বলা হল।

সব শুনে অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবার জন্য সাতশো টাকা ভাড়া হাকলেন যুবক চালক রবিউল ইসলাম। মুড দেখিয়ে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন প্রয়োজনে মালিকের সঙ্গে কথা বলে নিন। এদিকে তখন ক্রমশ বমি করে চলেছে বছর নয়ের ছোট্ট ছেলেটি। কিন্তু সাতশো টাকা যে নেই সামান্য পরিচারিকার কাজ করা মহিলা ও পরিবারের কাছে। এই অসহায় পরিস্থিতিতেও মন গলেনি তরুণ চালকের। হাজার আবেদন, অনুরোধ উপেক্ষা করে নির্বিকারে ফের মশারির ভিতর ঢুকে পড়ল রবিউল। মুখে কিঞ্জিত বিরক্তির ভাব। অবশেষে পরিবারের পাশে দাঁড়ায় স্থানীয় এক অটো চালক। অগত্যা অটোতে করেই আরজি কর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় রোগীকে। ক্যামেরায় ধরা পড়েছে অসহায়তা ও অমানবিকতার সেই ছবি। যদিও ক্যামেরার সামনে ভোল বদলে টাকা পয়সার কোনও কথা হয়নি বলে দাবি করে চালক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *