জেলা নদীয়া

রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ জগন্নাথ সরকারের সংসদ এলাকায় ২০০০ সৌরবাতি স্থাপনের সুচনা হল।

প্রতিনিধি, নদীয়া

প্রাকৃতিক কয়লা পুড়িয়ে তাপ বিদ্যুৎ উৎপাদনের দিন প্রায় শেষের দিকে। পরিবেশ দূষণের কথা ভেবেই জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের উপর জোর দিয়েছে সরকার। বিজ্ঞানের প্রভূত উন্নতি সাধনে আরো একধাপ এগিয়ে বেশ কয়েক বছর যাবৎ সৌরশক্তিকে বৈদ্যুতিক শক্তিতে রূপান্তরিত করার উপর জোর দিয়েছে সরকার। বর্তমানে এই ব্যবস্থার কিছুটা খরচ বেশি হলেও অদূর ভবিষ্যতে সকলেরই হাতের নাগালে এসে যাবে এই ব্যবস্থা। বুধবার রানাঘাট তপশিলি কেন্দ্রের সাংসদ জগন্নাথ সরকারের প্রচেষ্টায় কেন্দ্রীয় সরকারের অটল জ্যোতি যোজনার চার কোটি আটচল্লিশ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ২০০০ সৌর বাতি স্থাপন করার কাজ শুরু হল তার সংসদ এলাকায়। আনুষ্ঠানিকভাবে তার নিজ গ্রাম আড়পাড়া থেকে শুরু হয় সকাল দশটা নাগাদ। আমপান ঝড় পরবর্তী সময়ে এখনো পর্যন্ত বৈদ্যুতিন বিভ্রাট রয়েছে বহু গ্রামে। এমনকি বিদ্যুৎ বিল প্রদানের টালবাহানাতে অনেক পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বহু গ্রামের রাস্তা থাকে অন্ধকার। অথচ রাত-বিরাতে চিকিৎসা বা পেশাগত কারণে গ্রামের মানুষের আসতে হয় শহরে, মূলত তাদের কথা ভেবেই কেন্দ্রীয় সরকারের এই পরিকল্পনা। সাংসদ জগন্নাথ সরকার জানান, “আগামী ২১ দিন কর্মদিবসের মধ্যেই তার রানাঘাট লোকসভা সংসদ অন্তর্গত সাতটি বিধানসভার বিভিন্ন গ্রাম এবং শহরের এই সৌরবাতি স্থাপন করা হবে। শুধু সৌরবাতি নয় কেন্দ্রীয় সরকার পরিকল্পিত জনহিতকর বেশ কয়েকটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বেশকয়েকটি প্রকল্প আগামী অল্পদিনের মধ্যেই সাধারণ মানুষের সামনে আসতে চলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *