উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা

হাবড়া হাসপাতলে অ্যাম্বুলেন্সে দেরি হওয়ায় করোনা রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে তদন্তে নামল স্বাস্থ্যদপ্তর।

বিশ্বজিৎ দেবনাথ, উঃ২৪ পরগনা

এদিন ডেপুটি সিএমওএইচ-৩ নিরঞ্জন গঙ্গোপাধ্যায় হাসপাতালে আসেন এবং হাবড়া সুপার ডা বিবেকানন্দ বিশ্বাস সহ সকল কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি জানান,  তদন্ত চলছে এই মুহূর্তে কিছু বলা সম্ভব নয় এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয় সেই দিকে নজর থকাবে। তদন্ত গাফিলতি পাওয়া গেলে নিয়ম অনুসারে তার উচিত স্বাস্থির ব্যাবস্থা করা হবে।

উল্লেখ্য, গতকাল দুপুর বারোটার সময় শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাবরা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয় এক মহিলা।  তৎক্ষণাৎ পরীক্ষা করে জানা যায় সে করোণায় আক্রান্ত। করোণা আক্রান্ত রোগীকে রেফার করার পরেও হাসপাতালে বাইরে খোলা জায়গায় পরে থাকতে হয় দীর্ঘ সময়। পরিবারের অভিযোগ, দুপুর ১২ টায় হাবড়া হাসপাতালে রোগীকে নিয়ে আসলেও ৩০ মিনিট বাদে রেফার করা হয়। কিন্তু, বিকেল ৪টে নাগাদ হাবড়া হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স আসলেও ড্রাইভার পিপিই কিট পরতে আরও ৩০ মিনিট সময় নেয়। বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ হাসপাতালের বাইরেই অবশেষে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হয় করোনা আক্রান্ত রোগীর। পরিবারের অভিযোগ সঠিক সময়ে যদি অ্যাম্বুলেন্স হাসপাতালে আসতো তাহলে বাঁচানো যেত রোগীকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *