জেলা পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান

পুলিশের সাথে হাতাহাতি সমর্থকদের, যুব তৃণমূলের নেতাকে গ্রেফতারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে।

নীলকণ্ঠ দাস, আসানসোল

সালানপুর থানার কল্যানেশ্বরীর ফাঁড়ির অন্তর্গত দেন্দুয়া মোড়ে যুব তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সম্পাদক রাজা খানকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়ার সময় হঠাৎ করে পুলিশের গাড়ি আটকে কর্মী সমর্থকরা রাজা খানকে গাড়ি থেকে নামিয়ে নেয়। সেই সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত কল্যানেশ্বরী ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক অমরনাথ দাসের সঙ্গে তৃণমূলের কর্মী সমর্থকদের হাতাহাতি করতে গিয়ে মাটিতে পড়ে যায় তৃণমূল নেতা রাজা খান ও কল্যানেশ্বরী ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক অমরনাথ দাস। অবশেষে সালানপুর থানা থেকে বিশাল পুলিশ বাহিনী এসে রাজা খানকে গ্রেফতার করে এবং রাজা খানের বাবা তথা সংখ্যালঘু সেলের ব্লক সভাপতি বুড়া খানকে আটক করে নিয়ে যায়। ঘটনার সূত্রপাতে জানা যায়, রোহিত নুনিয়া নামক এক যুবক তার বন্ধু বাদল সিংহের নামে এক মোটর সাইকেল ক্রয় করেন। কিন্তু, গাড়ির মালিককানা নিয়ে অসুবিধার জন্য দুই পক্ষের মধ্যে ঝামেলার সৃষ্টি হয়। দুই পক্ষের মধ্যে সেই ঝামেলার মীমাংসা কল্যানেশ্বরী আঞ্চলিক কমিটি কার্যালয়ে হওয়ার সময় বাদল সিংহের মা, বাবা ও বোনের উপর হাত তোলেন তৃণমূল নেতা রাজা খান। এমনই অভিযোগ করেন বাদল সিংহের বোন কাজল সিং। অন্য দিকে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন তৃণমূল নেতা রাজা খান ও বুড়া খান। এই বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরেই তৃণমূল নেতা রাজা খানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রাজা খানকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশের সাথে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পরে কর্মী সমর্থকরা বলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত স্থানীয়রা জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *