জেলা পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান

পুলিশে জালে ধরা পড়ল গুলিকাণ্ডের মূল অভিযুক্ত আরজু উপাধ্যায়।

নিজেস্ব প্রতিনিধি, দুর্গাপুর

অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ল গুলিকাণ্ডের মূল অভিযুক্ত আক্রান্তের ভাই আরজু উপাধ্যায়। শুক্রবার গভীর রাতে ডিবিসি মোড় সংলগ্ন পরিত্যাক্ত আবাসনের জঙ্গল থেকে আরজুকে গ্রেফতার করে দুর্গাপুর নিউ টাউনশিপ থানার পুলিশ। জানা যায়, আক্রান্ত মহিলা বেবি উপাধ্যায়ের বড় ছেলে বিক্রম দুবের সুত্র ধরেই আরজুকে পাকড়াও করে পুলিশ। সেই সঙ্গেই তার কাছ থেকে উদ্ধার হয় একটি আগ্নেয়াস্ত্র। উল্লেখ্য, দুর্গাপুর নিউ টাউনশিপ থানার অন্তর্গত এমএএমসি টাউনশিপ সংলগ্ন সুভাষ পল্লীর বাসিন্দা ৪৮ বছর বয়সী বেবি উপাধ্যায় তারই বড় ছেলের বন্ধু সুভাষ রায়ের সঙ্গে গাটছড়া বাঁধে। তারপর থেকেই বিষয়টি নিয়ে পারিবারিক অশান্তি চলতেই থাকে। জানা যায়, বেবির ভাইয়েরও দিদির এই দ্বিতীয় বিয়েতে আপত্তি ছিল, কিন্তু কর্ণপাত করেননি বেবি। এরপরই বৃহস্পতিবার ভাই আরজু উপাধ্যায় আচমকাই বেবির বাড়িতে এসে তার বুকে ও পিঠে গুলি চালিয়ে দেয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় বেবিকে উদ্ধার করে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে দুর্গাপুরের অন্য একটি বেসরকারি হাসপাতালে বেবিকে স্থানান্তরিত করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন। এই ঘটনার পর থেকেই ভাই আরজু পলাতক ছিল। শুক্রবার এই গুলিকাণ্ডে আক্রান্ত ওই মহিলার বড় ছেলে বিক্রম দুবেকে গ্রেফতার করে দুর্গাপুর নিউ টাউনশিপ থানার পুলিশ। এরপর দুর্গাপুর মহকুমা আদালতে সন্দেহভাজন অভিযুক্তকে তোলা হলে আদালত তাকে ৭ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেয়। জানা যায়, বেবিকে মারার জন্য মামা আরজুকে ইন্ধন যুগিয়েছিল বেবির এই বড় ছেলেই। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে আরও কিছু অভিযোগ রয়েছে বলেও সূত্রে জানা গিয়েছে। অবশেষে বিক্রমকে হেফাজতে নিয়েই গুলিকাণ্ডের মূল অপরাধী বেবির ভাই আরজু ধরা পড়ল পুলিশের জালে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *